Home / বিউটি টিপস / নাভির যত্ন নেয়ার ৭টি উপকারিতা জেনে নিন
নাভির যত্ন

নাভির যত্ন নেয়ার ৭টি উপকারিতা জেনে নিন

আপনার শরীরের যেকোন স্থানে আপনি তেল(Oil) ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু আপনি শুনলে খুবই অবাক হবেন যে, আপনার নাভীতে তেল ব্যবহার করার মধ্যেও রয়েছে দারুণ সব ভালো দিক! সত্যি বলতে নাভীর আলাদা করে কোন যত্নও আমরা নেই না। তবে নিজের ত্বকের, শরীরের যত্ন(Body Care) নেওয়া শুরু করতে চাইলে নাভীর যত্ন নেওয়া থেকেই আপনি সেটা শুরু করতে পারেন। এই ফিচার থেকে জেনে নিন নাভীতে তেল ব্যবহারের কিছু চমৎকার উপকারিতা।

নাভির যত্ন নেয়ার ৭টি উপকারিতা জেনে নিন

১/ ত্বককে নমনীয় করে
ত্বককে দারুনভাবে নমনীয় করতে তেল(Oil) খুবই উপকারী একটি উপাদান। বিশেষ করে, শরীরের যে অংশগুলোর যত্ন নেওয়ার কথা আপনি একেবারেই ভুলে যান, সেসব অংশগুলোর জন্যে তেল খুবই উপকারী, যেমন- নাভী, এবং পেটের চারপাশ। বিশেষ করে শীতের সময়ে যখন আবহাওয়া খুব বেশী শুকনো থাকে তখন তেল খুব দারুণ কাজে দেয়।

এক্ষেত্রে ব্যবহারের জন্য আপনি নারিকেল তেল অথবা অলিভ অয়েল(Olive oil) ব্যবহার করতে পারেন। এদের মধ্যে রয়েছে ইমোলিয়েন্ট ইফেক্ট এবং ফ্যাটি এসিড এর উপাদান সমূহ। পেটের উপরে কয়েক ফোঁটা তেল দিয়ে নাভী চারপাশ এবং পুরো পেটে তেল ভালোভাবে মালিশ করে নিন। দেখবেন ত্বক(Skin) একদম নমনীয় হয়ে গিয়েছে।

২/ ময়লা পরিষ্কার করতে সাহায্য করে
শরীরের অন্যান্য অংশ যেমন মুখের ত্বক, হাত কিংবা পায়ের যত্ন(Foot care) আমরা অহরহই নিয়ে থাকি। এর মাঝে আমাদের নাভী পরিষ্কার করার কথা আমরা কিন্তু একেবারেই ভুলে যাই। সেক্ষেত্রে নাভীতে প্রচুর ময়লা জমে খুবই বাজে অবস্থা হয়ে যায়। এই ময়লা পরিষ্কার করার জন্যে একটি কটনবাড তেলে ডুবিয়ে এরপর সেটার সাহায্যে নাভী পরিষ্কার করতে হবে। তেল মরা চামড়া এবং ময়লাকে সহজে উঠে আসতে সাহায্য করে।

যেহেতু নাভী খুব একটা পরিষ্কার করা হয় না, নাভীর ময়লা খুব শক্ত হয়ে আটকে থাকে। সেক্ষেত্রে খুব বেশী জোরাজুরি করলে নাভীতে ব্যথা পাওয়ার সম্ভবনা থাকে। তাই খুব সাবধানের সাথে এই কাজটি করতে হবে।

আরো পড়ুন  বিউটি পার্লারের মত স্কিন পলিশ করার ঘরোয়া পদ্ধতি

৩/ ইনফেকশন ভালো করতে সাহায্য করে
যেহেতু নাভী(Navel) খুব দ্রুত ময়লা হয়ে যায় এবং সচরাচর নাভী পরিষ্কার করা হয়ে ওঠে না, সেহেতু নাভীতে জমে থাকা ময়লা থেকে ইনকেশনের সৃষ্টি হয়। এছাড়া নাভী অনেক বেশী সময় ধরে আর্দ্র থাকলেও নাভীতে ইনফেকশন দেখা দিতে পারে। অন্য যে কারণে নাভীতে ইনফেকশন(Infection) বেশী হয়ে থাকে, নাভী পরিষ্কার করতে গিয়ে কোন খোঁচা লেগে কেটে গেলে সেখান থেকে ইনফেকশনের সৃষ্টি হয়। এক্ষেত্রে, সঠিক তেল ব্যবহার করলে নাভীর ইনফেকশন দ্রুত সেরে যায়। টি ট্রি অয়েল সকল তেলের মধ্যে সবচেয়ে দারুণ কার্যকরী। কারণ, এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে এন্টি-ব্যক্টেরিয়াল এবং এন্টি-ফাংগাল উপাদান।

৪/ পেটে ব্যথা ভালো হতে সাহায্য করে
পেটে ব্যথার৯Stomach pain) জন্যে নাভীতে তেল দেওয়া খুবই কার্যকরী একটি উপায়। বিশেষ করে হজমে সমস্যা, ডায়রিয়া, ফুড পয়জনিং এর মতো সমস্যাগুলোতে নাভীতে তেল দেওয়া খুব দারুণ কাজে দেয়। এছাড়া, এটাকে পেট ব্যথার প্রাকৃতিক প্রতিকার হিসেবেও অভিহিত করা হয়।

পেটে ব্যথা কমানোর জন্যে আদা অথবা পুদিনা পাতার এসেনশিয়াল অয়েল ভালো কাজে দেয়। নিত্যদিনের ব্যবহার্য তেলে যেমন- নারিকেল তেল কিংবা অলিভ অয়েল(Olive oil) এর সাথে মিশিয়ে ব্যবহার করলে ভালো ফল পাওয়া যাবে।

৫/ মাসিকের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে
প্রতি মাসে মাসিকের সময়টাতে প্রচণ্ড পেটে ব্যথার কারণে কমবেশি সকল নারীকেই ভুগতে হয়। তবে এই পেটে ব্যথা অনেকখানি কমিয়ে আনা সম্ভব নাভী এবং পেটে তেল ব্যবহার করার মাধ্যমে। সকল তেলের মাঝে পুদিনা পাতা অথবা আদার এসেনশিয়াল অয়েল(Essential Oil) সবচেয়ে বেশী ভালো কাজে দেবে। কয়েক ফোঁটা তেল নারিকেল কিংবা অলিভ অয়েলের সাথে মিশিয়ে নিয়ে পেটে খুব নমনীয়ভাবে ম্যাসাজ করলে কিছুক্ষণ পর দেখা যাবে ব্যথা কমে গেছে অনেকখানি।

৬/ গর্ভধারণ প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে উপকারী
এটা নিশ্চয় জানেন যে, গর্ভধারণ এর সাথে নাভীর একটি যোগসূত্র রয়েছে। আপনি যখন মায়ের পেটে ছিলেন তখন আপনার মায়ের নাভীর সাথেই সংযুক্ত ছিল আপনার নিজের নাভী! নাভীতে সরাসরি তেল দেওয়ার মাধ্যমে গর্ভধারণ(Pregnancy) প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে অনেক উপকার পাওয়া যায়।

আরো পড়ুন  সৌন্দর্য পরামর্শ আকর্ষণীয় ব্রাইডাল সাজের ৭টি গোপন টিপস

নিয়মিত কিছু এসেনশিয়াল অয়েল নাভীতে ব্যবহারের ফলে শরীর অনেক রিল্যাক্স থাকে। ছেলেদের ক্ষেত্রে স্পার্ম ভালো থাকে, মেয়েদের মাসিকের সমস্যা কমিয়ে আনে এবং শরীরে হরমোনের প্রবাহ ঠিক রাখতে সাহায্য করে।

৭/ ‘নাভাল চক্রর’ ভারসাম্য ঠিক রাখে
আয়ুর্বেদে, শক্তি এবং কল্পনার একটি বড় উৎস হলো এই নাভাল চক্র আপনার সকল স্বপ্ন, ইচ্ছা এবং লক্ষ্যের মূল স্থান। আপনি যদি আপনার ক্রিয়েটিভিটি ঠিক রাখতে চান তবে আপনাকে এই নাভাল চক্রটি ঠিক রাখতে হবে। কয়েক ফোঁটা এসেনশিয়াল অয়েল নারিকেল তেল(Coconut oil) কিংবা অলিভ অয়েলের সাথে মিশিয়ে নাভীতে দিতে হবে এবং পুরো পেটে ধীরে ধীরে ম্যাসাজ করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *