ত্বক উজ্জ্বল করবে চালের গুঁড়া

ত্বক উজ্জ্বল করবে চালের গুঁড়ার ৩টি মাস্ক

চালের গুঁড়া(Rice powder) বা চালের আটা যে শুধু আপনার খাদ্য চাহিদা মেটাবে এর আর কোন কাজ নেই, এমন ভাবাটা বড় ভুল। স্কিনের পরিচর্যায় চালের গুঁড়া(Rice powder) খুবই কাজের জিনিস। দিন শেষে বাসায় ফিরে আয়নার দিকে তাকালে আমাদের সবার মনই কম বেশি খারাপ হতে বাধ্য। পরিবেশ দুষণের প্রভাব, ঘাম, তেল মিলে মুখের অবস্থা একদম ম্লান তেলতেলে করে রাখে। এই অবস্থা থেকে খুব সহজেই মুক্তি পাওয়া যায় চালের গুঁড়ার নিয়মিত ব্যবহারে। তাও খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বুঝবেন স্কিনের পরিবর্তন। বিশেষ করে আমরা যারা ধৈর্য্য ধরে দীর্ঘমেয়াদি ত্বক(Skin) কেয়ারের চিন্তাও করতে রাজি নই তাদের জন্য চালের গুঁড়া খুবই কাজের জিনিস। সপ্তাহে দুই/তিন দিন করে ব্যবহারেই এক মাসের মধ্যেই স্কিন হবে ফর্সা, দাগমুক্ত এবং টলটলে লাবণ্যময়।

চালের গুঁড়া যেভাবে কাজ করবে –

⇒ চালের গুঁড়ায় থাকে খুবই উচ্চমানের PABA (Para aminobenzonic acid), যা খুব ভালো সানস্ক্রিন হিসেবে কাজ করে। ফলে ⇒ সুর্যের অতি ক্ষতিকর রশ্মি থেকে ত্বক থাকে সুরক্ষিত ।

আরো পড়ুন  ফর্সা ও উজ্জ্বল ত্বক পেতে ব্যবহার করুন চন্দনের ফেসপ্যাক

⇒ চালের গুঁড়ায় থাকা allantoin নামের উপাদান রোদে পোড়া ত্বক ঠিক করে ও ক্ষতিগ্রস্ত ত্বক রিপেয়ার করে।

⇒ চালের গুঁড়ায় থাকা tyrosinase নামক উপাদান স্কিনের মেলানিন উৎপাদনের হার কমিয়ে আনে।

⇒ চালের গুঁড়া স্কিনের অতিরিক্ত অয়েল ও সেবাম উৎপাদন দূর করে।

⇒ চালের গুঁড়ায় থাকে অতি উচ্চমানের ভিটামিন বি(Vitamin B), যা ত্বক এর ক্ষতিগ্রস্ত কোষ নতুন করে উৎপাদন করে, ত্বকি এর বুড়িয়ে যাওয়া রোধ করে।

⇒ চালের গুঁড়া ত্বক এর কোলাজেন উৎপাদন বাড়ায় এবং ঝুলে পড়া রোধ করে টানটান করে তুলে।

এই চালের গুঁড়া দিয়ে বেশ কয়েকভাবে মাস্ক বানানো যায়। তবে এখানে আমি তিনটি ফেসমাস্ক(Face mask) বানানোর কথা আপনাদের জানাবো, যা আপনাদের স্কিনে ম্যাজিকের মতো কাজ করবে। ফেস থেকে দাগ-ছোপ দূর করবে, টানটান করবে, ফর্সা ও উজ্জ্বল(Bright) করবে কয়েক সেড পর্যন্ত।

(১) চালের গুড়া, আটা ও দুধের মাস্ক

⇒ এক চা চামচ চালের গুঁড়া

⇒ এক চা চামচ আটা

⇒ এক চা চামচ গুঁড়া দুধ/ দুই চা চামচ লিকুইড দুধ

আরো পড়ুন  ত্বক ফর্সা ও উজ্জ্বল করতে টমেটো ফেসপ্যাক

সব উপাদান ভালো করে মিশাতে হবে। এরপর মুখ(Face) ধুয়ে মাস্কটা মুখে ও গলায় লাগিয়ে রাখতে হবে ২০ মিনিট। তারপর হালকা গরম পানি(Hot water) দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে ভালো করে। খেয়াল রাখতে হবে মুখে যেন কিছু থেকে না যায়। সপ্তাহে ২/৩ বার লাগাতে হবে। এক মাসের মধ্যেই দেখবেন ত্বক ঝলমল করছে।

(২) চালের গুঁড়া,মুলতানি মাটি ও টমেটোর মাস্ক

⇒ এক চা চামচ চালের গুঁড়া

⇒ আধা চা চামচ মুলতানি মাটি

⇒ অর্ধেকটা টমেটোর রস(Tomato juice)

এক সাথে সব উপাদান ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। এবার মুখ ধুয়ে মাস্কটা মুখে ও গলায় লাগাতে হবে। ২০ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। এটি আপনার স্কিনের অতিরিক্ত তেল(Oil), সেবাম দূর করবে আর ত্বক উজ্জ্বল করবে ভীষণ রকম। এই মাস্কটিও সপ্তাহে ২/৩ দিন লাগাতে হবে। তবে খুব ভালো হয় যদি রোজ একবার লাগানো যায়। তবে সপ্তাহের মধ্যেই রেজাল্ট পাওয়া শুরু করবেন।

আরো পড়ুন  চিরতরে বলিরেখা দূর করুন মাত্র ১টি ফেসপ্যাক ব্যবহার করে

(৩) চালের গুঁড়া ও অ্যালোভেরা মাস্ক
এই মাস্কটি খুব ভালো এক্সফলিয়েটিং প্যাক হিসেবে কাজ করে। স্কিনের মরা চামড়া দূর করে খুব ইফেক্টিভ-ভাবে। এর জন্যে আপনাকে যা করতে হবে তা হল-

⇒ এক চা চামচ চালের গুঁড়া

⇒ দুই চা চামচ অ্যালোভেরার রস

মিক্স করে মুখে লাগিয়ে রাখতে হবে ২০ মিনিট। ২০ মিনিট পর মুখ পানি দিয়ে ভিজিয়ে হালকা হাতে ম্যাসাজ(Massage) করে মাস্ক তুলে ফেলতে হবে। এরপর যথারীতি প্রচুর পানি দিয়ে মুখ ভালো করে ধুয়ে ফেলতে হবে। সপ্তাহে দুইবার করলেই হবে।

যে কোন হোমমেড মাস্কে সাধারণত কেমিক্যাল ফ্রি হয়। তাই এইসব মাস্ক কাজ করতে একটু সময় নেয়। কেমিক্যালযুক্ত প্রোডাক্ট(Chemical Products) খুব দ্রুত কাজ করে ঠিকই কিন্তু তার সাইড এফেক্টও থাকে। মাঝে মাঝে সাইড এফেক্টের প্রভাব হয় খুব ক্ষতিকরভাবে। তাই সময় একটু বেশি লাগলেও কেমিক্যাল ফ্রি হোমমেড মাস্কগুলোই স্কিনের জন্যে ব্যবহার করা ভালো। এতে স্কিনের ক্ষতি তো হয়ই না বরং নিয়মিত ব্যবহারে দীর্ঘমেয়াদী ফল পাওয়া যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *