ছোলা ভিজিয়ে রাখতে ভুলে গিয়েছেন? যেভাবে মাত্র ৩০ মিনিটে ছোলা নরম করবেন

ইফতারের (ifter) টেবিলে একটা অত্যন্ত জরুরী আইটেম হচ্ছে ছোলা ভুনা। তবে একদম নরম ছোলা ভুনা খেতে চাইলে ছোলাটা ভিজিয়ে রাখতে হয় আগের রাতেই, কমপক্ষে সেহেরির সময় বা সকাল বেলা। ৬/৭ ঘণ্টা না ভিজিয়ে রাখলে ছোলা ফোলে না, ফলে সিদ্ধ করার পর নরম হয় না।

কিন্তু কিছু কিছু সময় মনের ভুলে ছোলা ভেজানো হয়ে ওঠে না। তাই আম’রা এখন দিচ্ছি ভিজিয়ে রাখা ছাড়াই নরম ছোলা পাওয়ার tips। বেশী না, সময় লাগবে মাত্র ৩০ মিনিট। কি, বিশ্বা’স হলো না তো? চলুন তবে জে’নে নিই একটি জাদুকরী উপায় (magical way)।

যা লাগবে: ছোলা ২৫০ গ্রাম, ফুটন্ত গরম পানি দের থেকে ২ লিটার, প্রেসার কুকার (pressure cooker) । যা করবেন: ছোলা ভালো করে ধুয়ে একটি বড় পাত্রে নিন। তারপর ফুটন্ত গরম পানি ছোলার মাঝে দিয়ে দিন। পাত্র ঢাকনা দিয়ে রাখু’ন। এভাবে রেখে দিন ১৫ থেকে ২০ মিনিট। এবার প্রেসার কুকারে (pressure cooker) ছোলাগুলো পানি সহ দিয়ে দিন। এমনভাবে পানি দেবেন যেন ছোলা ভালো মত ডুবে থাকে পানিতে।

আরো পড়ুন  সমস্যা যখন অধিক লবণ সেবন

প্রেসার কুকার (pressure cooker) চুলায় বসিয়ে দিন বেশী আঁচে। সিটি বাজা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। ৩ থেকে ৫ টি সিটি বাজলেই চুলা নি’ভিয়ে দিন। চুলা থেকে কুকার সরাবেন না, সেভাবেই রেখে দিন। প্রেসার কুকার (pressure cooker) থেকে সমস্ত বাষ্প নিজে নিজে বের হয়ে যেতে দিন। তারপর খু’লে দেখু’ন, আপনার ছোলা সিদ্ধ তৈরি। এবার এই ছোলাকে পছন্দমত রান্না করে নিন।

জরুরী টিপস: অনেক ছোলা প্রেসার কুকারেও (pressure cooker)  ফুলতে বা সিদ্ধ হতে সময় লাগে। যদি দেখেন যে ছোলা ফোলেনি বা সিদ্ধ হয়নি, সেক্ষেত্রে প্রেসার কুকারের ঢাকনা আ’টকে আরও কয়েকটি সিটি দিন। ছোলা ২০ মিনিটের জায়গায় ১ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখলে সবচাইতে ভালো। তবে ২০ মিনিটেও কাজ চলবে।

আরো পড়ুন  করোনাভাইরাস থেকে সেরে উঠতে কত দিন লাগে?

মুসলমানদের জন্য রমজান সবচেয়ে পবিত্রতম মাস। রোজার মাসে সেহরি ও ইফতার (ifter) অনেকটা ইবাদতের মতো। সারাদিন রোজা থাকার পর ইফতার (ifter)  প্রতিটি রোজদারের জন্য অত্যন্ত আনন্দের।

ইফতারিতে খাবারের (Food ) নানা ধ’রনের আয়োজন থাকে প্রত্যেক বাড়িতে। তবে সারাদিন রোজা থাকার পর একবারে অনেক Food খেলে তা হজ’মে স’মস্যা তৈরি ক’রতে পারে। ইফতারির (ifter)  সময় খুব বেশি চর্বিযুক্ত প্রোটিন খাওয়া ঠিক নয়। বরং চর্বি ছাড়া প্রোটিন মানে মাছ (fish), মুরগির মাংস, টার্কি এগুলো খেতে পারেন।

ইফতারির (ifter)  সময় খুব তাড়াহুড়া করে না খাওয়াই ভালো। সারাদিন খালি পে’টে থাকার পর দ্রুত কিংবা বেশি পরিমাণে Food  খেলে হজ’ম এবং গ্যাস্ট্রিকের স’মস্যা হতে পারে। বরং অল্প অল্প করে ধীরে ধীরে খাবার খান।

আরো পড়ুন  হঠাৎ শারী’রিক মি’লন বন্ধ করলে মে’য়েদের যা হয়! প্রত্যেক স্বা’মীর জানা উচিৎ

তাহলে Food  ভালোভাবে হজ’ম হবে। ইফতারিতে (ifter) যতটা সম্ভব ভাজাপোড়া এড়িয়ে চলবেন। এছাড়া এই সময় খুব বেশি পরিমাণে চর্বিযুক্ত, লবণাক্ত (salt) এবং চিনিযুক্ত খাবার খাওয়াও ঠিক নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *