যে বয়সে সাধারণত মেয়েদের যৌ’ন উত্তেজনা অনেক বেশি থাকে

সবারই হয়তো ধারণা যে, মেয়েদের প্রথম ঋতুস্রাব (period) হওয়ার ৪-৫ বছর পরই অর্থাৎ ১৭-১৮ বছর বয়সেই নাকি তাদের কামোত্তেজনা বেশি হয়। আবার অনেক যৌনবিজ্ঞানী কিংবা যৌন চিকিৎসক এটা বলে থাকেন যে- ২০-২১ বছরেই তারা অনেক বেশি কামোদ্দিপক হয়ে ওঠে সকল নারীরা। এতোদিন তো এমনটাই ধারণা ছিল তাদের। তবে সাম্প্রতিক একটি গবেষণা পাল্টে দিয়েছে সেই সকল ধারণা।

তাহলে আপনি কি জানেন যে আপনার সঙ্গীনি ঠিক কখন যে সবচেয়ে আবেদনময়ী হয়ে ওঠেন? অনেকেই তো ভাবছেন ২০ বছরের দোরগোড়াতেই৷ কিন্তু একথা কিন্তু একেবারেই ঠিক নয়৷ সঙ্গীনি যখন ২৬ বছরে পা রাখেন তখনই তিনি সবচেয়ে বেশি আবেদনময়ী হয়ে ওঠেন৷

যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকোর একটি চিকিৎসা বিজ্ঞান ইনস্টিটউটের একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, মহিলাদের (female) যৌন উত্তেজনা একদম চরমে পৌঁছায় ২৬ বছর বয়সে৷ যদিও পুরুষদের যৌনতা একদম চরমে পৌঁছায় ৩২ বছরের পরই।

এই সমীক্ষায় প্রায় এক হাজার প্রাপ্তবয়স্কদের মতামত সেখানে নেওয়া হয়৷ এই সমীক্ষা থেকে এটা জানা গেছে যে, সান ফ্রান্সিসকোর মহিলারা তাদের জীবনে ২৬ বছর বয়সেই সবচেয়ে বেশি যৌনতা তারা উপভোগ করেন৷ সে ক্ষেত্রে পুরুষরা (male) যৌনতার আস্বাদ ভালোভাবে গ্রহণ করেন ২৭ বছরের পরবর্তী সময়েই৷

ওই সমীক্ষায় এটা আরও দেখা গেছে যে, অধিকাংশ মহিলাই যৌনতার প্রথম স্বাদ গ্রহণ করেছেন তো ১৮ বছরের পর৷ কিন্তু সে ক্ষেত্রে আবার পুরুষরা (male) ১৭ বছরের গোড়ার দিকেই কিন্তু প্রথম যৌনতা উপভোগ করেছেন৷

এটাও দেখা গিয়েছে যে, পুরুষদের প্রথম যৌন অনুভূতি উপভোগ করার প্রায় ১৫ বছর পরেই তারা যৌনতাকে সবচেয়ে বেশি উপভোগ করে থাকেন৷ কিন্তু সে ক্ষেত্রে মহিলারা প্রথম যৌনতার আস্বাদ নেওয়ার ১০ বছর পরেই ওই যৌনতাকে চূড়ান্তভাবে উপভোগ করতে পারেন তারা ৷

আরো পড়ুন  যে সমস্ত খাবার খালি পেটে খাবেন এবং কোনগুলো ভুলেও খাবেন না তা জেনে নিন

সহবাসের ২০ মিনিট আগে যে দুটি খাবার (food) খেলে থাকতে পারবেন ঘন্টার পর ঘন্টা

সহবাসের (physical relation) ২০ মিনিট আগে যে দুটি খাবার (food) খেলে থাকতে পারবেন ঘন্টার পর ঘন্টা,শুনুন ডাক্তারের কাছ থেকেই।শরীরের বিভিন্ন পুষ্টি পূরণে আমরা প্রতিদিনই অনেক ধরনের খাবার (food) খেয়ে থাকি কিন্তু সবাই জানি কি কোন ধরনের খাবার (food) আমাদের সেক্স (physical relation)বাড়াতে সক্ষম?

সাধারণত খাবারে (food) ভিটামিন এবং মিনারেলের ভারসাম্য ঠিক থাকলে শরীরে এন্ড্রোক্রাইন সিস্টেম সক্রিয় থাকে।আর তা আপনার শরীরে এস্ট্রোজেন এবং টেস্টোস্টেরনের তৈরি হওয়া নিয়ন্ত্রণ করে। এস্ট্রোজেন এবং টেস্টোস্টেরন সেক্সের ইচ্ছা এবং পারফরমেন্সের জন্য জরুরি।আপনি যৌন মিলনের মুডে আছেন কিনা তা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করে আপনার খাদ্য। আসুন জেনে নিই এমন কয়েকটি দৈনন্দিন খাদ্য সম্পর্কে যা আপনার শরীরে সেক্স পাওয়ার বাড়ায় বহুগুণ।

জেনে নিন:
দুধ : বেশি পরিমাণ প্রাণিজ-ফ্যাট আছে এ ধরনের প্রাকৃতিক খাদ্য আপনার যৌনজীবনের উন্নতি ঘটায়। যেমন, খাঁটি দুধ, দুধের সর, মাখন ইত্যাদি।

বেশিরভাগ মানুষই ফ্যাট জাতীয় খাবার(food) এড়িয়ে চলতে চায়।কিন্তু আপনি যদি শরীরে সেক্স (physical relation)হরমোন তৈরি হওয়ার পরিমাণ বাড়াতে চান তাহলে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট জাতীয় খাবারে (food) দরকার। তবে সগুলিকে হতে হবে প্রাকৃতিক এবং স্যাচুরেটেড ফ্যাট।

ঝিনুক : আপনার যৌনজীবন আনন্দময় করে তুলতে ঝিনুক খাদ্য হিসেবে খুবই কার্যকরী। ঝিনুকে খুব বেশি পরিমাণে জিঙ্ক থাকে। জিঙ্ক শুক্রাণুর সংখ্যা বৃদ্ধি করে এবং লিবিডো বা যৌন-ইচ্ছা বাড়ায়। ঝিনুক কাঁচা বা রান্না করে যে অবস্থাতেই খাওয়া হোক, ঝিনুক যৌনজীবনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

আরো পড়ুন  নতুন শিশুর খাবার-দাবার (১০ থেকে ১২মাস)

শরীরের বিভিন্ন পুষ্টি পূরণে আমরা প্রতিদিনই অনেক ধরনের খাবার(food) খেয়ে থাকি কিন্তু সবাই জানি কি কোন ধরনের খাবার (food) আমাদের সেক্স (physical relation)বাড়াতে সক্ষম? সাধারণত খাবারে(food) ভিটামিন এবং মিনারেলের ভারসাম্য ঠিক থাকলে শরীরে এন্ড্রোক্রাইন সিস্টেম সক্রিয় থাকে।

আর তা আপনার শরীরে এস্ট্রোজেন এবং টেস্টোস্টেরনের তৈরি হওয়া নিয়ন্ত্রণ করে। এস্ট্রোজেন এবং টেস্টোস্টেরন সেক্সের ইচ্ছা এবং পারফরমেন্সের জন্য জরুরি।

আপনি যৌন মিলনের মুডে আছেন কিনা তা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করে আপনার খাদ্য। আসুন জেনে নিই এমন কয়েকটি দৈনন্দিন খাদ্য সম্পর্কে যা আপনার শরীরে সেক্স (physical relation)পাওয়ার বাড়ায় বহুগুণ।

অনেক দম্পত্তি খুব টেনশন এ আছেন তাদের যৌন মিলন দীর্ঘক্ষণ উপভোগ করতে পারেন না বলে। যৌনতা ধরে রাখা অনেক এখন অনেক পুরুষের ক্ষেত্রেই একটি বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়৷ যার ফলে দাম্পত্য জীবন হতে পারে এক বড় সমস্যা বহুল৷ বেশ কিছু পদক্ষেপ রয়েছে আপনারা যদি তা গ্রহন করে থাকি, আপনাকে এইসমস্ত ঝামেলা থেকে একদম মুক্তি দিতে পারে তা ৷ কিছু নিয়ম আপনাকে করে তুলতে পারে অনেক বেশি আবেগপ্রবন যখন আপনার সঙ্গীর সঙ্গে মিলিত হতে যান। হওয়ার আগে ও পরে আপনি হয়ে যাবেন আরও আকর্ষণীয়৷

যৌনমিলন দীর্ঘস্থায়ী করার উপায়

যৌন মিলনের আগে:

শান্ত করতে হবে মন সহবাস (physical relation) করার আগে। মনে কোন রকমের ঋনাত্মক ভাবনা আনলে একদম চলবে না৷ শারীরিক ও মানসিক অস্থিরতা হল স্বল্পস্থায়ী যৌনতার একমাত্র কারণ।
শারীরিক ভাবে তৈরি করুন নিজেকে শারীরিক মিলেনর জন্য। মানসিক চাপ ও উদ্বেগ কমিয়ে আনুন৷ প্রয়োজনে সুস্থ এবং স্বাভাবিক নিয়মে করতে পারেন হস্তমৈথুন ৷

আরো পড়ুন  যৌ’নমিলনের সময় মাত্র ১ মিনিটেই বী’র্যপাত ? নিয়ে নিন সমাধান । আর স্ত্রীর কাছে লজ্জা পেতে হবেনা

• নিয়মিত যৌনসঙ্গী খুঁজুন যদি সম্ভব হয় তবে। আপনার শারীরিক এবং মানসিক পরিস্থিতি সরল করতে সাহায্য করবে যদি আপনি এমনটা করেন৷ অথবা নিজের অসুবিধার কথা জানান নিজের সঙ্গীকেও ৷ তবে যদি নিয়মিত আপনি যৌনসঙ্গী বদল করে থাকেন তাহলে আপনি তার সঙ্গে খোলামেলা ভাবে অনেক আলোচনা করতে ব্যর্থ হবেন৷

• অবশ্যই কন্ডোম ব্যবহার করুন৷ আবার বেশির পুরুষের অভিযোগ করেন যে কন্ডোম ব্যবহারের ফলে তাদের আগের চেয়ে অনেক বেশি যৌন আকাঙ্খা হ্রাস হচ্ছে৷ এটি মনের ভুল ছাড়া কিছুই নয় বলে মনে করা হয়৷

• তামাক,মদ ও অন্যান্য ওষুধের অতিরিক্ত পতিমানের সেবন করলে দীর্ঘস্থায়ী (longibility) যৌনতার ক্ষেত্রে অনেক বাধা সৃষ্টি করতে পারে৷
যৌনমিলনের সময়:

• কোন ফোর প্লে বাদ দেবেন না যৌনমিলনের আগে

• অবস্থানে পরিবর্তন করুন যত খুশি৷ নতুন কিছু করে আপনার মনোযোগকে আরও বেশি রোমাঞ্চিত করে তুলতে পারেন ৷ আর অবশ্যই সঙ্গীর চাহিদার দিকে নজর দিন৷

• সঙ্গীর আধিপত্যে সহবাসের (physical relation) সময় লজ্জাবোধ করার কোন ধরনের কারণ নেই৷

• পরিশ্রম কম অনুভব হবে যদি আপনি ধীরে ধীরে শ্বাসপ্রশ্বাস নিন। এর ফলে শরীর দীর্ঘক্ষণ যৌনমূলনের সাথে উপযুক্ত থাকবে৷
আপনারা যদি এই বিষয় গুলো অনুশরন করে থাকেন তবে আপনাদের জিবন কে করে তুলতে পারেন অনেক বেশি আনন্দময়। তাই এই মিলনের আগে আরোও ভাল করে জেনে নিন যে আপনার কি করা উচিত আর কি করা উচিত না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *