মানবজাতির জন্য নতুন ভাইরাস হুমকি

SARS ভাইরাসের সমগোত্রীয় একটি নতুন ভাইরাসকে সমগ্র বিশ্বের জন্য হুমকি হিসাবে দেখছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। MERS-CoV নামের এই নতুন ভাইরাস দ্বারা ইতিমধ্যে ৪৯ ব্যক্তির সংক্রমণ হয়েছে, যার মধ্যে ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। খবর CNN

SARS ভাইরাসের সমগোত্রীয় একটি নতুন virus মহামারি ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আশঙ্কা প্রকাশ করেছে। MERS-CoV নামের এই নতুন ভাইরাস দ্বারা ইতিমধ্যে ৪৯ ব্যক্তির সংক্রমণ হয়েছে, যার মধ্যে ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত সপ্তাহেই সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সৌদি আরবের পূর্ব অঞ্চলে তিনজন আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যুর (death) কথা নিশ্চিত করে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জেনারেল ডাইরেক্টর এই ভাইরাসকে বাখ্যা করেছেন”সমগ্র বিশ্বের জন্য হুমকি”-এমনভাবেই। উল্লেখ্য যে গত বছর প্রথম এই
virus সনাক্ত করা হয়। Coronavirus নামের ভাইরাসটি নির্দিষ্ট কোন এলাকা বা দেশে ছড়িয়ে পড়ছে এমন নয়। অনেক ক্ষেত্রে আরব উপদ্বীপে এর সংক্রামনের খবর পাওয়া গেলেও অন্য যায়গাতেও এর সংক্রমণে মানুষ (men) মারা যাচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। তবে ইউরোপের বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা গেছে আক্রান্ত ব্যক্তির প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ ভবে মিডল ইস্টের সাথে কোন না কোন সংযোগ ছিল। অন্যদিকে ফ্রান্স এবং যুক্তরাজ্যে দেখা গেছে আক্রান্ত ব্যক্তির মধ্য প্রাচ্যে সাথে কোন যোগাযোগ না থাকলেও সম্প্রতি তারা যে কোন ভাবেই হোক মধ্য প্রাচ্য থেকে ফেরত এসেছেন এমন কারো সাথে মেলামেশা করেছেন, এবং পরে এই ভাইরাসের দ্বারা আক্রান্ত হয়েছেন। ফ্রান্সে গত সপ্তাহের মঙ্গলবার মিডল ইস্ট থেকে ফেরত আসা একজন ব্যক্তি ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। Coronavirus এর আক্রমণে SARS ভাইরাসের এর মতই সাধারণ জ্বর,ঠান্ডা-কাশি অথবা তীব্র শ্বাস প্রশ্বাসের সিন্ড্রোম দেখা যায়, সেইসাথে পশুদেরও এর আক্রমনে বিভিন্ন রোগ হয়ে থাকে। যদিও এই virus  SARS ভাইরাসের সমগোত্রীয়, কিন্তু একরকম নয়। তাই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা একে সম্পূর্ণ নতুন একটি নির্দিষ্ট নাম দিয়েছে যা হল Middle East respiratory symptom coronavirus অথবা MERS-CoV। এটি মূলত একটি ঠান্ডা ভাইরাসের মত কাজ করে এবং শ্বসনতন্ত্র আক্রমণ করে। কিন্তু চিন্তার বিষয় হল, জ্বর ও কাশির মত এর সাধারন আক্রমনের পরেই নিউমোনিয়া বা কিডনি ফেইলিওর এর মত গুরুতর শারীরিক সমস্যা ও উপসর্গ দেখা দিতে পারে। আরেকটি problem হল এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি এই ভাইরাসের ঠিক কতটা ছড়িয়ে পরেছে। ফলে এর সংক্রমণ প্রতিরোধ করাটা এখনও একটু কঠিন বলেই মনে করা হচ্ছে। এই প্রেক্ষিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (world heath organization) সবাইকে সম্ভাব্য সব ধরনের জ্ঞান এবং প্রযুক্তি নিয়ে একযোগে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন। তথ্য সূত্র- সি এন এন

আরো পড়ুন  যে সময়ে নারীদের যৌন চাহিদা বাড়ে ! ডঃ তাহমিনা আক্তার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *