যেভাবে সহবাস করলে মেয়েরা বেশি তৃপ্তি পায়

নারীকে যৌন উত্তেজিত করার চারটি পদ্ধতি রয়েছে। এগুলোর মাধ্যমে আপনি দীর্ঘ সময় যৌনমিলন উপভোগ করতে পারবেন।

১) সিঙার :

বেশির ভাগ নারী মিলনপুর্ব সিঙারে সরাসরি যৌন মিলনের চেয়ে বেশি তৃপ্তি পেয়ে থাকে। তাই ফোর-প্লে তে অধিক সময় নিন।

২) কল্পনা/ফ্যান্টাসী :

শাররীক মিলনকালে অথবা অন্য সময় যৌনতা নিয়ে কল্পনা করা মোটেও ভুল নয়। সঙ্গীর উত্তেজক কর্মকান্ডের সাথে আপনার কল্পনা মিশিয়ে এক সুখকর আবেশে জড়াতে পারেন। কল্পনার রাজ্যে সব পুরুষ রাজা আর তার সঙ্গী রাণীর আসনে থাকে।

৩) সরাসরি মিলনে দেরী করা :

নারী, বিশেষ করে তরুনীরা সাধারনত বেশি বেশি চুমা, ছোয়া সহ অন্যান্য আনুষাঙ্গিক যৌন উত্তেজক বিষয় একটু বয়স্কদের চেয়ে বেশি কামনা করে। বয়সভেদে চরম উত্তেজনায় পৌছতে কম/বেশি সময় নিয়ে থাকে। আপনার সঙ্গীর আকাঙ্খার উপর ভিত্তি করে পেনিট্রেশানের আগে আরো কিছু সুখ আদান প্রদান করুন।

আরো পড়ুন  সহ’বাসের পর দেরীতে গোসল নিয়ে বিধান যা জেনে রাখা খুবই জরুরী

৪) ভাইব্রেটর :

আমাদের দেশে এখনো সেক্স টয় বিক্রি ও ব্যবহার নিষিদ্ধ। তাই নারীকে উত্তেজিত করার জন্য ভাইব্রেটর এর বিকল্প আপনার মধ্যমা আঙুলী দিয়ে তার যোনীর ভিতর জি-স্পট (যৌনাঙ্গের কিছুটা ভিতরে অতি সংবেদনশীল অঞ্চল) এ কম্পন সৃষ্টি করতে পারেন। তবে মনে রাখবেন কোন অভ্যাস যেন স্থায়ী না হয়ে যায়।

বাৎস্যায়ন বলেন- মিলনে এসব উপাচার প্রয়োগ করা উচিত কেবল নারী যেন বেশী ব্যথা না পায় ….। নারীর কাম উত্তেজনা দ্রুত কি ভাবে বৃদ্ধি করা যায় সে বিষয়েও কামশাস্ত্রে আলোচনা করা হয়েছে। নিম্নলিখিত উপায়গুলি অবলম্বন করলে দ্রুত নারীর কাম উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়। তা হলোঃ- মুখ, কপাল, গাল ইত্যাদি স্থানে ঘন ঘন চুম্বন করা ও ধীরে ধীরে ঘর্ষণ করা। সঙ্গমের পূর্বে নারী দেহের বিভিন্ন স্থান স্পর্শ করলে, ধীরে ধীরে নাড়াচাড়া করলে কাম উত্তেজনা জাগে। নারীর যৌন ইন্দ্রয়গুলি স্পর্শ, ঘর্ষণ ও মর্দন করা উচিত। বিশেষ করে স্তন ও ভগাঙ্কুর মর্দন কাম উত্তেজনার সহায়ক। প্রয়োজন হ’লে ধীরে ধীরে আঘাত করা, দংশন করা বা নিপীড়ন করা চলে। সহবাসের আগে উপরোক্ত বিষয়ে স্ত্রীকে ভালভাবে উত্তেজিত কারা একান্ত আবশ্যক-অন্যথায় স্ত্রীর অতৃপ্তি থেকে যেতে পারে।

আরো পড়ুন  করোনায় পুরুষরা বেশি মারা যাচ্ছেন কেন? কারণটা বিস্তারিত জানুন

নারীর উত্তেজনার লক্ষণ নারী উত্তেজিত হ’লে তার কি কি লক্ষণ পেতে পারে তা এবারে বলা হচ্ছে। নারী উত্তেজিত হ’য়ে পড়লে এবং কামবিহ্বল হলে তার দু’টি চোখ অর্দ্ধনিমীলিত ও রক্তবর্ণ ধারণ করে। জোরে জোরে নিশ্বাস পড়তে থাকে। চেহারার মধ্যে উত্তেজনার ভাব স্পষ্ট ফুটে ওঠে। হাত পা শিথিল হ’য়ে পড়ে। চোখ বুজে থাকতে চায়। তার লজ্জা কমে যায়, পুরুষ তার অঙ্গস্পর্শ করলে সে তাতে বাধা দেয় না। পুরুষ তার গোপন স্থানে হাত দিলে বা চাপ দিলে সে তা উপভোগ করে। সব রকম ভয়, সঙ্কোচ কাটিয়ে সারাটা দেহই সে পুরুষকে অর্পণ করে। নারীর তৃপ্তির লক্ষণ নারী যৌন তৃপ্তি লাভ করলে তার মধ্যে কি কি লক্ষণ প্রকাশ পায় তা এবারে আলোচনা করা হচ্ছে। দেহ নুইয়ে পড়ে। সারাটা দেহে যেন অবসান আসে। দ্রুত হৃৎস্পন্দন হ’তে থাকে। আবেশে চোখ বুজে থাকে। যোনি থেকে রসস্রাব নির্গত হয়, এমন কি প্রস্রাব করে ও দিতে পারে।। নারীর সারা দেহে পুনঃপুনঃ শিহরণ হতে থাকে। অনেকে পূর্ণ তৃপ্তির আবেশে অজ্ঞান পর্যাপ্ত হ’তে পারে এমন ঘটনাও জানা যায়। ধীরে ধীরে গোঁ গোঁ বা প্রাণীর অনুরূপ শব্দ বের হ’তে পারে। সে পুরুষকে জোর করে বুকে চেপেও ধরে রাখতে পারে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *