যে কোনো নারীকে যৌন মিলনে আগ্রহী করার উপায়

অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় মেয়েরা সহবাস এর প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলে।সেক্স বিষয়টি পরিপূর্ণ ভাবে এনজয় করতে পারেনা। অথবা যৌন মিলনে (physical relation) ব্যাথা অনুভব হয়।সংসারে অশান্তি বিরাজ করে।যৌন উত্তেজনা বৃদ্ধির ঔষুধ নিয়মিত সেবনে মেয়েদের যৌন চাহিদা বাড়বে।অরগাজম এর মাধ্যমে পরিপূর্ণ যৌন তৃপ্তি লাভ করতে পারবে।দাম্পত্য জীবনে অনেক নারী পুরুষ যৌন অতৃপ্তিতে ভুগছেন।অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় মেয়েরা সহবাস এর প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলে। সেক্স বিষয়টি পরিপূর্ণ ভাবে এনজয় করতে পারেনা। অথবা যৌন মিলনে (physical relation)ব্যাথা অনুভব হয়। সংসারে অশান্তি বিরাজ করে।

যে কোনো নারীকে যৌন মিলনে (physical relation)আগ্রহী করার উপায়

কাউকে দেখেই আপনার যদি তার সঙ্গে মিলিত হতে ইচ্ছে হয়, তবে সেটা কি দোষের? কখনই নয়! বিশেষ করে, উল্টো দিকের মানুষটিও যদি আগ্রহী হন! এ দিকে সমস্যা হল, আমাদের সমাজে এখনও শারীরিক মিলন (physical relation) নিয়ে নানা গোপনীয়তা বজায় রাখতে চান মহিলারা। সেই গোপনীয়তা বজায় রেখে, তাঁর বিশ্বাস অর্জন করে এবং সবার শেষে তাঁর শরীরে-মনে আপনার জন্য তুমুল আকর্ষণ তৈরি করে কীভাবে মিলিত হবেন? সঙ্গে থাকুক এই ১১টি টিপস্!

১. মেয়েটির ঘনিষ্ঠ হন: ঘনিষ্ঠতা এখানে একেবারেই মানসিক। কোনও মেয়ের সঙ্গে মিলিত হতে চাইলে সবার আগে তাঁর সঙ্গে একটা মানসিক যোগাযোগ গড়ে তুলুন। তাঁর সঙ্গে কথা বলুন। আচরণ হোক বন্ধুত্বপূর্ণ। দেখবেন, মেয়েটি আপনার সঙ্গ পছন্দ করছে।

আরো পড়ুন  বী’র্য বেশিক্ষণ ধরে রাখার উপায়, যারা নতুন বিয়ে করবেন তাদের জন্য

২. হয়ে উঠুন তাঁর পছন্দের মানুষ: মানুষ শব্দটার উপরে একটু খেয়াল করুন। পছন্দের পুরুষ হওয়ার আগে কিন্তু পছন্দের মানুষ হয়ে ওঠাটা জরুরি। আর, কোনও মেয়ের সঙ্গে মিলিত হওয়ার আগে এই দ্বিতীয় ধাপটাই সব চেয়ে গোলমেলে। এই ধাপেই বুঝতে পারবেন, সুযোগ পাচ্ছেন, না কি হারাচ্ছেন! সুযোগ পাওয়ার জন্য ধীরে ধীরে মেয়েটির পছন্দ-অপছন্দ জানুন। তাঁর সঙ্গে গল্প (story) করুন। শেয়ার করুন নিজেদের কমন ইন্টারেস্ট। দেখবেন, মেয়েটিও আপনার সঙ্গে কথা বলার জন্য উন্মুখ হয়ে থাকছেন!

৩. রাতে সক্রিয় হন: আরে, এখনই উত্তেজিত (excited) হয়ে উঠবেন না। এখানে আমরা একেবারেই কথা বলা বা টেক্সট করার ব্যাপারে সক্রিয় হওয়ার কথা বলছি। খেয়াল রাখুন, কথোপকথন শুরু করার জন্য সন্ধেটা সব চেয়ে ভাল। সন্ধে থেকেই একটা-দুটো মেসেজ পাঠাতে থাকুন। তাহলে উল্টো দিকেও কথা বলার আগ্রহ বাড়বে। তার পর, একটু রাত জেগে না হয় কথাই বলুন! তবে ভুলেও এই ধাপে সেক্সের কথা তুলবেন না। তাহলেই সুযোগ হারাবেন।

আরো পড়ুন  ডায়েট ছাড়াই ১০ কেজি ওজন কমানোর ৪টি "পরীক্ষিত" কৌশল

৪. দিনে-রাতে হয়ে উঠুন আলাদা মানুষ: রাতে গল্প (story) করার সময়ে দু-একটা দুষ্টুমির ইঙ্গিত দিলেও সকালে সে সব প্রসঙ্গ একেবারেই তুলবেন না। তাহলেই একটা ভারসাম্য বজায় থাকবে। মেয়েটিও আপনাকে পছন্দ করবেন। তিনি বুঝতে পারবেন, আপনি যৌনকাতর নন!

৫. তাঁকে পছন্দ করেন, এটা বলবেন না: আপনি যে তাঁকে পছন্দ করেন, তাঁর প্রতি শারীরিক (physical) ভাবে আকৃষ্ট- সে সব কোনও কিছুই জানানোর দরকার নেই। তাহলে তিনি ভেবে নেবেন আপনি শুধুই যৌনতা চাইছেন! এবং, সঙ্গে সঙ্গে পছন্দের তালিকা থেকে খারিজ করে দেবেন আপনাকে।

৬. আলতো স্পর্শের সময়: এই পাঁচটি পর্যায় ঠিকঠাক ভাবে পেরিয়ে এলে নিশ্চিত হতে পারেন, আপনার সুযোগ আছে। এবং, এই পাঁচ ধাপে ঘনিষ্ঠতাও বেড়েছে আপনাদের। অতএব, এবার কথা বলার সময়ে তাঁর খুব কাছ ঘেঁষে বসতে পারেন। কিন্তু, এটা বুঝতে দেবেন না যে ইচ্ছে করেই কাছ ঘেঁষে বসছেন। আপনিও ব্যাপারটা খেয়ালই করেননি, এটাই তো স্বাভাবিক- ঠিক এই মানসিকতা বজায় রাখতে হবে। মাঝে মাঝে কিছু দেওয়া-নেওয়ার সময় আলতো করে স্পর্শও করতে পারেন।

৭. সেক্সুয়াল টেনশন তৈরি করুন: এবার প্রায় সরাসরি এগোনোর সময়! যখন আর কেউ নেই, আলতো করে তার আঙুল জড়িয়ে নিতে পারেন নিজের আঙুলে। সবার সামনেও কিছু বলতে পারেন তাঁর কানের খুব কাছে ছোঁট নিয়ে গিয়ে। দেখবেন, তিনি আপনার স্পর্শের জন্য উন্মুখ হয়ে আছেন।

আরো পড়ুন  পেটপুরে ভাত খাওয়ার পরেও স্লিম থাকবেন কিভাবে?

৮. খেলতে থাকুন: উঁহু! এখনও বিছানায় যাওয়ার সময় আসেনি! রাতে দুষ্টুমি মেশানো মেসেজ পাঠানোর সংখ্যাটা আরও একটু বাড়ান। তবে, সীমার মধ্যে থেকে। দিনের বেলায় চলতে থাকুক আলতো স্পর্শের খেলা। দেখবেন, মাঝে মাঝে মেয়েটি নিজেই স্পর্শ করছেন আপনাকে। মানে, তিনি তৈরি!

৯. যৌন উত্তেজক কথা: এখনও কিন্তু নয়! কোনও মেয়েই হ্যাংলা ছেলে পছন্দ করেন না। তাই এই ধাপে এমন কিছু মেসেজ পাঠান রাতে যা আপাতদৃষ্টিতে নিরীহ হলেও বহন করছে যৌন ইঙ্গিত। দেখবেন, মেয়েটি সাড়া দিচ্ছেন। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বার আপনারা মেতে উঠতে পারেন চ্যাটে!

১১. সঙ্গম-কাল: আপনার সঙ্গে সেক্স চ্যাট করার পরে, আপনার ডাকে সাড়া দিয়ে ঘরে এলেও সঙ্গে সঙ্গে ঝাঁপিয়ে পড়বেন না! তাঁকে ধীর স্পর্শ, আলতো চুমু (kiss) এবং উষ্ণ কথোপকথনে উত্তেজিত (excited) করুন। তার পর দেখবেন, যেমনটা আশা করেছিলেন, ব্যাপারটা তার চেয়েও ভাল হল! এর পর আপনি যা ভাল বোঝেন!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *