সজনে ডাটার এই উপকারিতাগুলো জানতেন?

বাজারে উঠতে শুরু করেছে সজনে ডাটা। এটি অনেকেরই বেশ প্রিয় একটি সবজি (vegetable)। এটি স্বাস্থ্য সুরক্ষার কাজেও বেশ প্রয়োজনীয়। শুধু সজনের ডাটাই নয়, সজনের পাতাও শাক হিসেবে খাওয়া যায়।

সজনে ডাটায় রয়েছে ভিটামিন (vitamin) বি-কমপ্লেক্স। এতে রয়েছে ফোলেট, ভিটামিন (vitamin) বি-৬, থায়ামিন, রিভোফ্লাভিন, প্যানটোথেনিক এসিড এবং নিয়াসিন। এগুলো শর্করা, প্রোটিন এবং চর্বি হজমে সহায়তা করে। এছাড়াও প্রচুর ক্যালসিয়াম, লৌহ, কপার, ম্যাঙ্গানিজ, জিংক, সেলেনিয়াম এবং ম্যাগনেশিয়াম পাওয়া যায়।

সজনে দিয়ে যেসব খাবার তৈরি করা যায়

সজনে ডাটা দিয়ে অনেক রকম তরকারি রান্না করা যায়। সব থেকে পরিচিত রেসিপি হলো সরিষা আর আলু দিয়ে সজনের ডাটার ঝোল আর ডাল, আলু আর সজনের ডাটার ঝোল। এছাড়াও সজনে ডাটা ও বড়ির ঝোল, সজনে ডাটা ও রুই মাছের ঝোল, সজনে ডাটা ও চিংড়ি ঝোল, সজনে আর কুমড়ো বড়ি, সজনে- লাউ নিরামিষ, দই সজনে ডাটা, আম আলু সজনে ডাটার ঝোল ইত্যাদিও রান্না করা যায়। চলুন জেনে নেই সজনের উপকারিতা-

আরো পড়ুন  লবঙ্গ খেলেই যে ৮টি রোগের খেল খতম হবে নিমিশেই

ঠান্ডা জ্বর এবং কাশি উপশম করে

সজনে ডাটায় প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন (vitamin) সি থাকে যা এন্টি অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। তাই ঠাণ্ডা জর এবং কাশি দূর করতে সাজনার তরকারি, ডাল বা সুপ করে খান।

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে
সজনে ডাটা দেহের কোলেস্টোরল নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। তাই সজনে ডাঁটা খাওয়া উচ্চ রক্ত চাপের রোগীদের জন্য বেশ উপকারী। এছাড়া উচ্চ রক্ত চাপের চিকিত্সায় সজনের পাতাও বেশ গুরুত্বপূর্ণ।

পেটের সমস্যা সমাধানে

সজনে হজম সমস্যা সমাধানে ব্যাপক ভাবে কার্যকরী। পেটে গ্যাস হলে, বদহজম হলে এবং পেটে ব্যথা (pain) হলে সজনের তৈরি তরকারী খেয়ে নিন। দেখবেন পেটের গোলমাল অনেক উপশম হয়ে যাবে।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে

আরো পড়ুন  বিশ্বখ্যাত কিছু স্বাস্থ্যকর টিপস

মানুষের শরীরে চিনির সঠিক মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রেখে ডায়াবেটিসের বিরুদ্ধে লড়তে সাহায্য করে সজিনা। তাই ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য সজনে খুবই উপকারী সবজি(vegetable)।

হাড় শক্ত ও মজবুত করে

সজনে ডাটায় প্রচুর পরিমাণে আয়রণ, ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন (vitamin) থাকে। তাই এটি সুস্থ এবং শক্তিশালী হাড়ের জন্য অত্যন্ত উপকারী এছাড়াও আমাদের শরীরের রক্ত বিশুদ্ধ করতেও সজনের কোন জুড়ি নেই।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

সজনে ডাটায় থাকা ভিটামিন (vitamin) সি এন্টি অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। এই এন্টি অক্সিডেন্ট রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং শরীরকে শক্তিশালী করে তোলে।

বসন্ত রোগ প্রতিরোধ করে
বসন্ত প্রতিরোধে সজনে ডাটা তরকারি বা ডাল রান্না করে খেলে জল বসন্ত ও গুটি বসন্তে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা অনেকাংশে কমে যায়।

আরো পড়ুন  যেভাবে সহ’বাস করলে মেয়েরা বেশি আরাম পায়..

মুখে রুচি বাড়ে

সজনে ডাটার মতো এর পাতারও রয়েছে যথেষ্ট গুণ। সজনে পাতা শাক হিসেবে, ভর্তা করেও খাওয়া যায়। এতে মুখের রুচি আসে।

আরও পড়ুন: যে কারণে প্রতিদিন মাছ খাবেন

শ্বাসকষ্ট কমায়

সজনে ডাটা এবং পাতার রস খেলে শ্বাসকষ্ট সারে। সজনে ডাটায় থাকা প্রদাহ-বিরোধী এন্টি অক্সিডেন্ট ভিটামিন (vitamin) সি অ্যালার্জি প্রতিরোধ করে, ফলে অ্যালার্জির কারণে যে শ্বাসকষ্ট হয় তা দূর করে।

এছাড়াও সজনে ডাটা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে, লিভার ও কিডনি সুরক্ষিত রাখে। শরীরের বাড়তি ওজন (weight) কমাতে সাহায্য করে সজনে। তাই সজনের এই ভরা মৌসুমে আপনার খাদ্য তালিকায় সজনের তরকারি বা সজনের ডাল রাখতেই পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *