রূপচর্চায় কাঁচা হলুদ

রূপচর্চায় কাঁচা হলুদের ৯টি জাদুকরী ব্যবহার

কাঁচা হলুদ বাটা, আঙ্গুরের রস ও গোলাপ জল(rose water) মিশিয়ে ব্রনের উপরে লাগান। কিছু সময় পর ধুয়ে ফেলুন। ব্রণ মিলিয়ে যাবে ও ইনফেকশন হবে না। ব্রনের দাগ দূর করতে কাঁচা হলুদ ও নিমপাতা বেটে দাগের উপর লাগান। বলিরেখা দূর করতে কাঁচা হলুদের সাথে দুধের সর মিশিয়ে মুখে মাখুন ফেস প্যাক(Face pack) হিসাবে। নিয়মিত ব্যবহারে অবশ্যই দারুন উপকার পাবেন। ত্বকের অ্যালার্জির সমস্যায় হলুদের রস(Yellow juice) মেশানো পানিতে গোসল করলে অ্যালার্জি ও র‍্যাশ অনেকটাই কমে যায়।

হলুদ আমাদের প্রত্যেকের রান্নাঘরে ভীষণ সহজলভ্য একটি উপাদান। হলুদ ব্যতীত বাঙালিদের রান্না যেন কল্পনাই করা যায়না। সেই প্রাচীন কাল থেকেই হলুদ ব্যবহৃত হয়ে আসছে নানান রকম চিকিৎসায় আর সেই সাথে কাঁচা হলুদ রূপচর্চার অন্যতম উপাদান হিসেবেও ব্যবহৃত হয়ে আসছে যুগ যুগ। কাঁচা হলুদে আছে অ্যান্টি এজিং উপাদান, তাই ত্বক হতে বয়সের ছাপ(Age impression) দূর করতে হলুদের জুরি মেলা ভার। আবার অন্যদিকে হলুদ অ্যান্টি সেপটিক হিসাবেও চমৎকার কাজ করে, তাই ব্রণ(Acne) দূর করতে বা ক্ষত সারাতেও অতুলনীয়। আসুন জেনে নেই সৌন্দর্য চর্চায় কাঁচা হলুদের কয়েকটি অনবদ্য ব্যবহার।

আরো পড়ুন  ত্বকের যত্নে হলুদের ব্যবহার জেনে নিন

ব্রণের চিকিৎসায়-
ব্রণ সারাতে হলুদের মতন চমৎকার প্রাকৃতিক উপাদান খুব কমই আছে। ব্রণের ইনফেকশন কমানো হতে শুরু করে ব্রণের দাগ(Acne scars) দূর করা পর্যন্ত হরেক রকম ব্যবহার আছে এর। নিম্নে রইলো সেগুলোর মাঝে কয়েকটি।

১) ব্রনের প্রচুর ব্রণ ওঠে তাদের জন্য কাঁচা হলুদ জাদুর মতো কাজ দেয়। ব্রনের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে কাঁচা হলুদ বাটা, আঙ্গুরের রস(Grapes juice) ও গোলাপ জল মিশিয়ে ব্রনের উপরে লাগান। কিছু সময় পর ধুয়ে ফেলুন। ব্রণ মিলিয়ে যাবে ও ইনফেকশন হবে না।

২) কাঁচা হলুদ বেটে রস করে নিন। এই হলুদের রসের সাথে মুলতানি মাটি(Multani soil) ও নিমপাতার রস এক সঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট করে ফেস প্যাকের মতন মুখে লাগান। প্যাক শুকিয়ে এলে গোলাপজল দিয়ে আলতো হাতে ম্যাসাজ করে করে নিন এবং পানির সাহায্যে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণের প্রকোপ কমবে।

আরো পড়ুন  মাত্র দুই সপ্তাহে ত্বকের রঙ উজ্জ্বল ফর্সা করবে অ্যালোভেরা ফেসপ্যাক

৩) ব্রনের দাগ দূর করতে কাঁচা হলুদ ও নিমপাতা(neem leaf) বেটে দাগের উপর লাগান। কিছুদিন লাগালে দাগ মিলিয়ে যাবে।

ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃণ করতে-
যুগে যুগে কাঁচা হলুদ ব্যবহৃত হয়ে আসছে সুন্দর ও উজ্জ্বল ত্বক পাবার আকাঙ্ক্ষায়। তবে ব্যবহার করতে হবে সঠিক পদ্ধতিতে।

৪) কাঁচা হলুদ বাটা,বেসন, চালের গুঁড়া ও টক দই(sour yogurt) একসাথে মিশিয়ে নিন। এবার সারা মুখে ও গলায় লাগান। শুকিয়ে গেলে হালকা হাতে ঘষে তুলে ফেলুন। এই প্যাকটি সপ্তাহে তিনদিন লাগালে ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃণ হবে।

৫) কাঁচা হলুদ ও মসুর ডাল একত্রে বেটে নিয়ে সাথে মুলতানি মাটি ও গোলাপজল(rose water) সহযোগে পেস্ট তৈরি করে ত্বকে লাগান। নিয়মিত ব্যবহারে ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল ও মসৃণ।

আরো পড়ুন  হলুদের ব্যবহারে ১২টি ঘরোয়া চিকিৎসা

৬) কাঁচা হলুদ ও শুকনো কমলার খোসা একত্রে বেটে স্ক্রাবার হিসাবে পুরো শরীরে ব্যবহার করতে পারেন। ত্বকে আসবে অন্য রকম জেল্লা।

বলিরেখা, রোদে পোড়া ও অ্যালার্জির জন্য-
৭) বলিরেখা(Bolero) দূর করতে কাঁচা হলুদের সাথে দুধের সর মিশিয়ে মুখে মাখুন ফেস প্যাক হিসাবে। নিয়মিত লাগালে অবশ্যই দারুন উপকার পাবেন।

৮) রোদেপোড়া দাগ কমাতে মসুর ডালবাটা, কাঁচা হলুদবাটা ও মধু(Honey) একসাথে মিশিয়ে ত্বকে লাগান।

৯) যাদের অ্যালার্জির সমস্যা আছে হলুদ মেশানো পানিতে গোসল করলে অ্যালার্জি ও র‍্যাশের সমস্যা অনেকটাই কমে যায়।
মনে রাখবেন হলুদ দিয়ে কখনো রোদে বের হবেন না, তাহলে ত্বক(Skin) পুড়ে কালো হয়ে যাবে। আর তাই হলুদ দিয়ে রূপচর্চা করবেন রাতের বেলা। কখনোই দিনের বেলা নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *