ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে হলুদের ফেসপ্যাক

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে হলুদের ফেসপ্যাক

কাঁচা হলুদে আছে অ্যান্টি এজেনিং উপাদান যা ত্বকের(Skin) বলিরেখা দূর করে উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে থাকে। কাঁচা হলুদ আমরা একেকজন একেক ভাবে ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু ত্বক এর ধরণ অনু্যায়ী কাঁচা হলুদের প্যাকে রয়েছে ভিন্নতা। ত্বকের ধরণ ও প্রয়োজন অনুযায়ী কাঁচা হলুদের প্যাক ব্যবহার করা উচিত। চলুন জেনে নিই কোন ত্বকে কোন প্যাকটি কার্যকর-

শুষ্ক ত্বকের জন্য হলুদ এবং বেসনের প্যাক
২ চা চামচ বেসন, ১ চা চামচ চন্দনের গুঁড়ো(Sandalwood powder), ১ চা চামচ দুধের সর এবং এক চিমটি হলুদের গুঁড়ো দিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এই প্যাকটি মুখ এবং ঘাড়ে লাগান। ১৫ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি(Water) দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। আপনার ত্বক যদি অনেক শুষ্ক হয়, তবে কয়েক ফোঁটা বাদাম তেল ব্যবহার করতে পারেন।

আরো পড়ুন  ঠোঁট আকর্ষণীয় করার কিছু কৌশল জেনে নিন

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য টক দই এবং হলুদের প্যাক
২ চা চামচ টক দ(sour yogurt)ই, ১ চা চামচ মুলতানি মাটি, গোলাপ জল(rose water) এবং এক চিমটি হলুদের গুঁড়ো দিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। আপনি চাইলে এতে চন্দনেরগুঁড়ো ব্যবহার করতে পারেন। এই প্যাকটি ভালো করে মুখ এবং ঘাড়ে লাগান। ১৫ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

সংবেদনশীল ত্বকের জন্য অ্যালো ভেরা এবং হলুদের প্যাক
২ চা চামচ মুলতানি মাটি(Multani soil), ১ চা চামচ টক দই, ১/২ চা চামচ অ্যালোভেরা জেল, এবং এক চিমটি হলুদের গুঁড়ো দিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এই প্যাকটি ভালো করে মুখে লাগান। ২০ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সংবেদনশীল ত্বকে প্যাক ব্যবহারে অনেক বেশি সচেতন থাকতে হয়। অ্যালোভেরা(Aloe Vera) এবং হলুদের প্যাক ত্বক এর যেকোন প্রকার দাগ দূর করে ব্রণের প্রবণতা কমিয়ে থাকে।

আরো পড়ুন  রূপচর্চায় কাঁচা হলুদের ৯টি জাদুকরী ব্যবহার

ত্বকের কিছু যত্নঃ

ত্বক পরিষ্কারে সাবান বিহীন পণ্য ব্যবহারঃ আপনি ত্বক পরিষ্কারক হিসেবে অবশ্যই সাবান বিহীন অর্থাৎ সোপ ফ্রি ফেস ওয়াশ(Face wash) ব্যবহার করবেন। সাবান আপনার ত্বক এর স্বাভাবিক দীপ্তি অনেকটাই কমিয়ে দেয়।

নখ দিয়ে ত্বকের শুষ্কতা পরিমাপ করুনঃ সব সময় হাতে কিংবা পায়ের ত্বকে নখ দিয়ে হালকা আচর কেটে দেখুন সেখানে কি সাদা ভাব ফুটে উঠছে কিনা? যদি সাদা দাগ দেখা যায় তবে বুঝতে হবে আপনার ত্বক শুষ্ক। শুষ্ক ত্বকের(Skin) সাথে যায় এমন সব জিনিস ত্বকে প্রয়োগ করতে হবে। আর যদি ত্বক হয় তৈলাক্ত তবে তৈলাক্ত জিনিস পরিহার করতে হবে।

মুখের ত্বকের মতই গলা এবং পিঠের যত্ন নিনঃ অনেকেই মনে করেন কেবল মুখের ত্বক এর যত্ন মানেই ত্বক(Skin) এর যত্ন। বাস্তবিক আপনার সম্পূর্ণ শরীর জুড়েই ত্বকের অবস্থান আপনাকে শরীরের সব জায়গায় সমান যত্ন নিতে হবে। বিশেষ করে আপনি যখন বাইরে যান, তখন আপনার ঘাড় কিংবা গলায় সূর্যের আলোর প্রভাব অনেক বেশী পড়ে, একই সাথে এই জায়গায় ময়লাও অনেক বেশী হয়। সুতরাং এসব যায়গায় ঠিকভাবে যত্ন নিতে হবে। গরমের দিনে বাইরে থেকে এসেই ঘাড়ে একটি টাওয়েল ঠাণ্ডা পানিতে ভিজিয়ে লাগান – এতে আপনার ঘাড় এবং মাথা উভয়ই শীতল থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *