রূপচর্চায় আদার ৫টি উপকারিতা

সর্দি-কাশি উপশম করতে আদা(Ginger) অথবা আদা চায়ের জুড়ি নেই এ কথা আমরা সবাই জানি। কিন্তু জানেন কি ভেষজ গুণাগুণ সম্পন্ন আদা ত্বক ও চুলের যত্নেও অনন্য? এটি ব্রণ দূর করার পাশাপাশি বিবর্ণ ত্বকে ফিরিয়ে আনে দীপ্তি। চুলের বৃদ্ধি বাড়াতেও আদা কার্যকর।

জেনে নিন রূপচর্চায় আদার বিভিন্ন ব্যবহার-

ব্রণ দূর করতে
১ চা চামচ আদা গুঁড়ার সঙ্গে ১ চা চামচ মধু ও কয়েক ফোঁটা লেবুর রস(Lemon juice) মেশান। মিশ্রণটি ব্রণ আক্রান্ত ত্বকে লাগিয়ে রাখুন ৩০ মিনিট। শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে একদিন এই ফেসপ্যাকটি ব্যবহার করলে দূর হবে ব্রণ।

বডি স্ক্রাব হিসেবে
২ টেবিল চামচ অলিভ অয়েলের(Olive oil) সঙ্গে সমপরিমাণ চিনি ও ২ টেবিল চামচ আদা কুচি মেশান। কয়েক ফোঁটা লেমন অয়েল দিয়ে ভালো করে পেস্ট তৈরি করুন। ত্বক সামান্য ভিজিয়ে ম্যাসাজ করুন মিশ্রণটি। পা থেকে গলা পর্যন্ত ত্বকে ম্যাসাজ করতে পারেন। কিছুক্ষণ পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন ত্বক।

চুলের বৃদ্ধি বাড়াতে
২ টেবিল চামচ আদার রস ও আধা কাপ জোজোবা অয়েল(Jojoba Oil) একসঙ্গে মেশান। মিশ্রণটি সামান্য গরম করে নিন। কুসুম গরম অবস্থায় মাথার তালুতে ঘষে ঘষে লাগান এটি। সারারাত রেখে পরদিন মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন চুল। সপ্তাহে একদিন এই হেয়ার প্যাক ব্যবহার করলে চুলের বৃদ্ধি দ্রুত হবে।

ত্বকের দাগ দূর করতে
আদা(Ginger) কেটে রস সংগ্রহ করুন। আদার রস ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা করে দাগের উপর লাগান। কিছুক্ষণ পর ভেজা কাপড় দিয়ে মুছে নিন ত্বক। দিনে দুইবার এটি ব্যবহার করলে ধীরে ধীরে মিলিয়ে যাবে ত্বকের কালচে দাগ।

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে
১ চা চামচ আদার রসের সঙ্গে ২ টেবিল চামচ গোলাপজল ও ১ চা চামচ মধু(Honey) মেশান। মুখ ও গলার ত্বকে মিশ্রণটি লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ত্বক ধুয়ে ফেলুন। জৌলুস বাড়বে ত্বকের।

আরো পড়ুন  ত্বক দ্রুত ফর্সা ও আকর্ষণীয় করতে সকালে ঘুম থেকে উঠে যা করবেন

Leave a Reply

Your email address will not be published.