ঘরে বসেই পার্লারের রঙ ফর্সাকারী হোয়াইটনিং ফেসিয়াল করুন

কাজের ব্যস্ততায় পার্লারে বুকিং দেওয়া হয়নি? কিংবা জ্যামের ভয়ে পার্লারে যাওয়ার ইচ্ছা নেই? কিন্তু উৎসবের আগে তো একটা ফেসিয়াল(Facial) করতেই হবে। তবে কী করার? ঘরে বসে করে নিতে পারেন পার্লারে মত হোয়াইটিং ফেসিয়াল। কোন বিশেষ অনুষ্ঠানের আগে চেহারায় দ্রুত উজ্জ্বলতা আনতে বেশ কার্যকর এই ফেসিয়ালটি। নিয়মিত এই ফেসিয়াল করলে ত্বকের দাগ(Skin scars) কমতে থাকে। আসুন জেনে নেয়া যাক কীভাবে বাড়িতে বসেই হোয়াইটেনিং ফেসিয়াল করবেন।

১) ক্লিনজিং –
হোয়াইটিং ফেসিয়ালের প্রথম ধাপটা হল ক্লিনজিং(Cleansing)। প্রথমে মুখ পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। এরপর মুখ ও গলায় ক্লিনজিং মিল্ক দিয়ে ভালভাবে ম্যাসেজ করুন। ৫ মিনিট ম্যাসেজ করার পর অতিরিক্ত ক্লিনজিং মিল্ক মুছে ফেলুন।

২) ম্যাসেজিং –
এবার মুখ ও গলায় ম্যাসাজ করার জন্য হোয়াইটেনিং ম্যাসাজ ক্রিম(Whitening Massage Cream) নিন। ক্রিম খুব ভালভাবে গলা ও মুখে ম্যাসাজ করুন ১৫-৩০ মিনিট ধরে। ম্যাসাজ করার সময় কিছুক্ষণ পরপর আঙ্গুলে হালকা ক্রিম নিয়ে আঙ্গুল পানিতে ভিজিয়ে তারপর ম্যাসাজ করবেন। এতে ম্যাসাজের ধারা বজায় থাকবে। যত ভালো ম্যাসাজ করতে পারবেন মুখ তত উজ্জ্বল দেখাবে, কেননা ম্যাসাজ করলে রক্তপ্রবাহে গতি আসে। ম্যাসাজ শেষে ত্বক ঠান্ডা পানিতে ভেজানো রুমাল দিয়ে মুছে ফেলুন।

আরো পড়ুন  ত্বকের যত্নে দারুণ উপকারী টমেটোর ফেসপ্যাক

৩) স্ক্রাবিং –
ম্যাসেজিং এর পর গলা ও মুখ স্ক্রাব করুন। ৫/১০ মিনিট স্ক্রাব করার পর অতিরিক্ত ক্রিম মুছে ফেলুন। এটা মৃত কোষ আর ব্ল্যাক হেডস(Black Heads) দূর করে থাকে।যে কোন ফেসিয়ালে স্ক্রাবিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

৪) স্টীমিং –
স্টীমিং করার অনেকগুলো উপায় আছে।এক বালতি গরম পানিতে লেবুর রস(Lemon juice) মিশিয়ে নিন। তারপর সেটা দিয়ে ৫ মিনিট মুখে ভাপ দিন। এটি ত্বকের ছিদ্র এর ভিতর থেকে ময়লা বের করে নিয়ে আসে।

৫) ফেসপ্যাক –
এবার হোয়াইটেনিং ফেসপ্যাক তৈরী করুন। তৈরী করতে ঝামেলা মনে হলে দোকান থেকে যেকোন হোয়াইটেনিং ফেসপ্যাক(Face pack) কিনে নিতে পারেনা। ফেসপ্যাক মুখে ও গলায় ২০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। এর সাথে চোখ বন্ধ রেখে উপরে পাতলা শসা/আলুর স্লাইস লাগিয়ে রাখতে পারেন। যেকোন ত্বকের জন্য মুলতানি মাটির পেষ্ট অনেক বেশী উপকারী।

আরো পড়ুন  রাতারাতি ফর্সা ত্বক পেতে ব্যবহার করুন ঘরোয়া এই ফেয়ারনেস ক্রিমটি

২ চা চামচ মুলতানি মাটি(Mlantani soil)
১ চা চামচ ডিমের সাদা অংশ
১ চা চামচ গোলাপজল

মুলতানি মাটি,ডিমের সাদা অংশ, গোলাপজল(rose water) ভাল করে মিশিয়ে পেষ্ট তৈরি করেন। মুখ এবং গলায় ভাল করে প্যাকটি লাগান। ১৫ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

৬) টোনিং –
ফেসপ্যাক(Face pack) মুছে ফেলার পর মুখে টোনার লাগাতে হবে। নিউট্রোজেনা, লরিয়াল প্যারিসের হোয়াট পারফেক্ট হোয়াটিং টোনার, এই ব্র্যান্ডের টোনারগুলো ভালো। এছাড়া হিমালয়া হার্বালস, ক্লিন এন ক্লিয়ার ব্র্যান্ডের টোনার ও লাগাতে পারেন। এগুলোর দাম কিছুটা কম পরবে। শুধু গোলাপজলও টোনারের কাজ করে। তুলায় অল্প পরিমাণ টোনার ভিজিয়ে মুখে লাগাতে হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.