ত্বকে উজ্জ্বলতা ভাব আনবে আলুর ফেসপ্যাক কীভাবে ব্যবহার করবেন?

ত্বকে উজ্জ্বলতার ভাব আনবে আলুর ফেসপ্যাক!
আলুতে আছে ভিটামিন সি ও ভিটামিন (vitamin) বি কমপ্লেক্স, পটশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, ফসফরাস এবং জিঙ্ক। এই সকল উপাদান প্রাকৃতিক ব্লিচিং এজেন্ট হিসেবে কাজ করে এবং আমাদের ত্বকের (skin) উপরিভাগের রঙ হালকা করে, কালো দাগ দূর করতে তো এর তুলনা নেই এবং ত্বকে (skin) একটা সুন্দর উজ্জ্বলতা ভাব এনে দেয়।

ত্বকের যত্নে আলুর উপকারিতা:
ত্বকের কালো দাগ: ত্বকের (skin) যেখানে কালো দাগ, সেখানটায় আলুর রসের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে ১০ মিনিট লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলতে হবে। এভাবে নিয়মিত ব্যবহারে কালো দাগ চলে যাবে।

চোখের নিচের কালো দাগ: আলুর রস (juice) করে সেই রস তুলায় ভিজিয়ে নিয়ে চোখের নিচে লাগিয়ে শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। নিয়মিত ব্যবহার করলে চোখের নিচের কালো দাগ দূর হবে। আলুর রসের সাথে অলিভ অয়েল মিশিয়ে চোখের নিচে ও কোনায় প্রতিদিন পাঁচ মিনিট লাগিয়ে রাখতে হবে। তারপর শুকানোর পর ধুয়ে ফেলতে হবে।এভাবে করলে ত্বকের (skin) বলিরেখা চলে যাবে।

ত্বকের উজ্জলতা: আলুর রস ও শসার রস একত্রে মিশিয়ে ত্বকে (skin) লাগিয়ে রাখতে হবে। পরে ধুয়ে ফেললে ত্বকের (skin) উজ্জ্বল ভাব ফুটে উঠবে।চোখের ফোলা ভাব কমাতে তুলার বল ভিজিয়ে চোখের ওপর দিয়ে রাখতে হবে। চোখের ফোলা ভাব চলে যাবে। আলুর রসে তুলা ভিজিয়ে রেখে সেই তুলা মুখ ও চোখে কিছুক্ষণ ঘষে পরে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। এতে করে ত্বক সজীব এবং চোখের ক্লান্তি ভাব দূর হবে।

শুষ্ক ত্বকে: শুষ্ক ত্বকে (skin) অনেক সময় লোশন বা ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করেও শুষ্কতা কমানো যায় না। এ ক্ষেত্রে প্রতিদিন এক গ্লাস আলুর রস পান করতে পারেন। আলুর রস ত্বকের শুষ্কতা কমায়।

আরো পড়ুন  ত্বকের সকল সমস্যার সমাধান দেবে এই ৪টি ফলের ফেসপ্যাক

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য: তৈলাক্ত ত্বকের (skin) জন্য আলু অত্যন্ত উপকারী। একটি মাঝারি সাইজের আলু ভাল করে কুঁচি করে নিন । এরপর কুচানো আলু ভাল ভাবে চিপে আলুর রস বের করুন। আলুর এই রসের সাথে ২ চা চামচ মুলতানি মাটি মিশিয়ে একটি ঘন পেস্ট তৈরি করুন । এরপর এটি ত্বকে (skin)  লাগিয়ে রাখুন, যতক্ষণ না পর্যন্ত এটি আপনার ত্বকে (skin) শুকিয়ে যায়। তারপর পানি দিয়ে ভাল ভাবে ধুয়ে ফেলুন।

অনেকের দেখাযায় অতিরিক্ত মাত্রায় শারীরিক মেলামেশা (physical relation) করার ফলে শুক্র সল্পতা দেখা দেয় অর্থাত্‍ শুক্রাণুর মাত্রা কমে যায় এবং (বীর্য) পাতলা হয়ে যায়। আপনার শরীররে যদি শুক্রাণুর মাত্রা কমে যায় তবে আপনি অনেক সময় সন্তান জন্ম দিতে অক্ষম হতে পারেন।
কি খেলে ৩ গুণ বেড়ে যায় পুরুষের যৌন সক্ষমতা ? ডাক্তারি পরামর্শ
স্বামী স্ত্রী সহবাস (physical relation) করার সময় কিছু নিয়ম কানুন

মিলনের সময় স্ত্রীর বীর্যপাত হলে কিভাবে বুঝবেন?

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যমতে, প্রতি মিলিলিটার শুক্রাণুতে ২০ মিলিয়নের কম স্পার্ম (sperm) থাকলে যেকোনো পুরুষ অনুর্বর হতে পারেন। বাজে খাদ্যাভ্যাস, ধূমপান, অ্যালকোহল, অনিয়ন্ত্রিত জীবন, ব্যায়ামে অনীহা প্রভৃতি কারণে দিন দিন অনুর্বরতা বাড়ছে। এক্ষেত্রে বিশেষ সহায়ক মসলা রসুন (Garlic)। কেননা সুস্থ (বীর্য) তৈরিতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার।

বীর্য বেশিক্ষণ ধরে রাখার উপায়

যৌন অক্ষমতার ক্ষেত্রে রসুন (Garlic)খুব ভালো ফল দিয়ে থাকে। রসুন কে ‘গরীবের পেনিসিলিন’ বলা হয়। কারণ এটি অ্যান্টিসেপ্টিক এবং হিসাবে কাজ করে আর এটি অতিঅ সহজলভ্য সব্জী যা আমারা প্রায় প্রতিনিয়ত খাদ্য (food) হিসাবে গ্রহন করে থকি। আপনার যৌন ইচ্ছা ফিরে আনার ক্ষেত্রে এর ব্যবহার খুবই কার্যকরী।

আরো পড়ুন  মুখ ও গলার কালো দাগ দূর করার ২টি কার্যকরী ঘরোয়া উপায়

যে দিনটিতে নারীর সবচেয়ে বেশি যৌন আকাঙ্ক্ষায় ভুগেন

কোন রোগের কারণে বা দুর্ঘটনায় আপনার যৌন ইচ্ছা কমে গেলে এটি আপনাকে তা পুনরায় ফিরে পেতে সাহায্য করে।এছাড়া যদি কোন ব্যক্তির যৌন ইচ্ছা খুব বেশী হয় বা তা মাত্রাতিরিক্ত হয় যার অত্যধিক প্রয়োগ তার নার্ভাস সিস্টেমের ক্ষতি করতে পারে এমন ক্ষেত্রে ও রসুন(Garlic) খুব ই কার্যকরী।
পুরুষের লিঙ্গে কোন তেল মাখলে সহজে বীর্যপাত হয় না

যেসব খাবার খেলে পুরুষের লিঙ্গ অত্যন্ত মোটা হয়ে যায় !

সেবন বিধি
প্রতিদিন নিয়ম করে কয়েক কোষ কাঁচা রসুন (Garlic)খেলে শরীরের যৌবন দীর্ঘ স্থায়ি হয় । যারা পড়ন্ত যৌবনে চলে গিয়েছেন, তারা প্রতিদিন দু’কোয়া রসুন (Garlic) খাঁটি গাওয়া ঘি-এ ভেজে মাখন মাখিয়ে খেতে পারেন। তবে খাওয়ার শেষে একটু গরম পানি বা দুধ খাওয়া উচিত। এতে ভালো ফল পাবেন।

যৌবন রক্ষার জন্য রসুন (Garlic) অন্যভাবেও খাওয়া যায়। কাঁচা আমলকির রস (juice) ২ বা ১ চামচ নিয়ে তার সঙ্গে এক বা দুই কোয়া রসুন (Garlic) বাটা খাওয়া যায়। এতে স্ত্রী-পুরুষ উভয়ের যৌবন দীর্ঘস্থায়ি হয়। গবেষণায় প্রমাণিত এতে করে ৩ গুণ পরিমাণ শক্তি বেড়ে যায়।

সাবধানতা
যাদের শরীর থেকে রক্তপাত সহজে বন্ধ হয় না, অতিরিক্ত রসুন (Garlic) খাওয়া তাদের জন্য বিপদ জনক। কারণ, রসুন রক্তের জমাট বাঁধার ক্রিয়াকে বাধা প্রদান করে। ফলে রক্তপাত বন্ধ হতে অসুবিধা হতে পারে। তা ছাড়া অতিরিক্ত রসুন (juice) শরীরে এলার্জি ঘটাতে পারে।

আরো পড়ুন  ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরে পাবার ৪টি গোপন কৌশল

এসব ক্ষেত্রে অতিরিক্ত রসুন না খাওয়াই উত্তম। রসুন (Garlic)খাওয়ার ফলে পাকস্থলীতে অস্বস্তি বোধ করলে রসুন (Garlic) খাওয়া বন্ধ রাখুন। শিশুকে দুগ্ধদানকারী মায়েদের রসুন না খাওয়াই ভালো। কারণ রসুন(Garlic) খাওয়ার ফলে তা মায়ের দুধের মাধ্যমে শিশুর পাকস্থলীতে ঢুকে শিশুর যন্ত্রণার কারণ ঘটাতে পারে।

একেক জনের শারিরীক (physical) গঠন একেক রকম হয়ে থাকে। আর শারিরীক (physical) গঠনগত পার্থক্যের কারণে খাবারের চাহিদাও ভিন্ন হয়ে থাকে। তবে চিকিৎসকরা মনে করেন, নারী-পুরুষ একে অপরের সাথে সেক্স (physical relation) করার আগে বিশেষ কিছু খাবার খাওয়া ভাল। চিকিৎসদের মতে জেনে নিন, সেক্সের আগে আপনি কী খাবেন, আর কী খাবেন না-

* সাধারণত সেক্সের (physical relation) আগে প্লেন টোস্ট খেতে পারেন। খুব বেশি হলে একটু মাখন। পাউরুটির অন্য কিছু নয়। তাছাড়া ডিমের সাদা অংশ চলতে পারে। সসেজ বা সালামি একেবারেই নয়।

* সেক্সের (physical relation) আগে কফি (coffee) পান করার কথা ভুলে যান। লিকার চা হতে পারে সঙ্গী। তবে রাতে মাছ বা চিকেন চলতে পারে। অন্য কোন মাংস(meat) নয়।

* ব্রোকোলি, ফুলকপি, বাঁধাকপি নয়, গ্রিন সালাড, শশা, মাশরুম বা টোম্যাটো (tomato) খান।

* ফ্রেঞ্চ ফ্রাই নয়। আলু খেতে হলে সিদ্ধই ভাল।

* এগ, চিকেন, মাটন- রোল, বিরিয়ানি কিছুই চলবে না। মাংস (meat) খেলে একেবারে হালকা করে খান।

* ওয়াইন ভাল। টেকিলা চলবে। কিন্তু সুরা-গোত্রের আর কিছু নয়।

* পিৎজা নয়, পাস্তা খাবেন। তবে সেক্স (physical relation)-এর আগে পপ কর্ন খাওয়াও ভাল।

* আইসক্রিম খেতে পারেন, তবে তা হতে হবে লো ফ্যাট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *