ব্রণ দূর করার সহজ উপায় জেনে নিন

ত্বকের যে সম্যসায় কম বেশী আমরা সবাই ভুক্তভোগি তা হল ব্রণ(Acne)। নরমাল বা শুষ্ক ত্বকের চেয়ে তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণের সমস্যা বেশী দেখা যায়। সাধারণত ত্বকের তৈলগ্রন্থি বা ওয়েল গ্ল্যান্ড ব্যাকটেরিয়ার(Bacteria) দ্বারা আক্রান্ত হলে সৃষ্টি হয় ব্রণের। ত্বকের উজ্জ্বলতা, সৌন্দর্য নষ্ট করতে অনেকাংশেই দায়ী এই ব্রণ এবং তার কালো দাগ। এই ব্রণ আর তার কালো দাগ(Black spots) দূর করার জন্য ব্যবহার করে থাকি নানা রকম কসমেটিক্স ও ঔষধ। এর পরিবর্ততে ব্যবহার করতে পারেন কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি যা সহজেই আপনার ব্রণ কমাতে সাহা্য্য করবে। তাহলে জেনে নেওয়া যাক দ্রুত ব্রণের হাত থেকে মুক্তি পাওয়ার সহজ় কিছু উপায়।

১) মুখ পরিষ্কার করুন আলতোভাবে
মুখে ব্রণ থাকলে ত্বক খুব সংবেদনশীল হয়ে যায়। তাই খুব ঘষাঘষি করে মুখ ধোয়া থেকে বিরত থাকুন। ব্রণ দূর করার জন্য প্রথমে কোমল কোনো একটি ক্লিনজার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন। এতে ত্বক থেকে তেল, মেকআপ(Makeup) এবং দূষণ দূর হবে। এরপর একটি ফেসওয়াশ দিয়ে আবার মুখ পরিষ্কার করুন, এতে রোমকূপ থেকে ময়লা এবং ব্যাকটেরিয়া পরিষ্কার হবে।

আরো পড়ুন  ব্রণ দূর করবে কলার ফেসপ্যাক

২) ত্বক প্রস্তুত করুন
ব্রণ দূর করার জন্য ত্বককে প্রস্তুত করুন এক্সফলিয়েটর ব্যবহারের মাধ্যমে। এর জন্য বিশেষ কোনো লিভ-অন এক্সফলিয়েন্ট ব্যবহার করতে পারেন। অথবা ত্বকে ময়েশ্চারাইজারও প্রয়োগ করতে পারেন। এতে ত্বক(Skin) জ্বালাপোড়া কমে আসবে।

৩) কখন ব্রণ ফাটাবেন
আপনার ব্রণটি যদি ব্ল্যাকহেড(Blackhead) বা হোয়াইটহেড হয় যা সহজেই উঠিয়ে ফেলা যাবে, তাহলে তা উঠিয়ে ফেলুন। কিন্তু ব্রণটি যদি সিস্ট বা নডিউল হয় (ত্বকের নিচে ফুলে আছে অথচ কোনো সাদা অংশ দেখা যাচ্ছে না, ব্যথা করছে) তাহলে আপনার হাত না দেওয়াই ভালো। প্রথমে গরম পানিতে শাওয়ার নিতে পারেন বা মুখে গরম পানিতে ভেজানো কাপড়ের সেঁক দিয়ে দেখতে পারেন। এতে অনেক সময়ে পুঁজ উপরের দিকে উঠে আসে এবং তা বের করে ফেলা সহজ হয়। যদি মনে হয় আপনি বের করতে পারবেন না তাহলে ডার্মাটোলজিস্ট দেখানোই ভালো।

৪) কীভাবে ফাটাবেন
মুখে স্টিম দিতে পারেন ব্রণ(Acne) ফাটানোর আগে। এতে রোমকূপ খুলবে এবং আপনার কাজ সহজ হবে। ব্যবহার করতে পারেন ব্ল্যাকহেড এক্সট্রাক্টিং টুল বা ব্রণস্টিক। অবশ্যই তা ব্যবহারের আগে জীবাণুমুক্ত করে নিন। ব্রণ বের করার পর অ্যালকোহল ওয়াইপ দিয়ে জায়গাটা মুছে নিন।

৫) স্পট ট্রিটমেন্ট
ব্রণ ফাটিয়ে ফেলার পরেও অনেকে বার বার সেখানে হাত দেন এবং খোঁচাখুঁচি করেন। এটা একেবারেই অনুচিত। আপনার ত্বককে সেরে ওঠার সুযোগ দিন। স্পট ট্রিটমেট অর্থাৎ ঠিক ব্রণের ওপরে প্রয়োগের কিছু স্কিন কেয়ার(Skin Care) প্রডাক্ট পাওয়া যায়, সেগুলো ব্যবহার করতে পারেন। এতে ওই জায়গায় জীবাণু আক্রমণ করার সুযোগ পায় না। এর জন্য ব্যবহার করতে পারেন স্যালিসাইলিক এসিড, বেনজয়িল পারক্সাইড, সালফার এবং রেটিনয়েড আছে এমন পণ্য। এগুলো রাত্রে ব্যবহার করাই ভালো।

আরো পড়ুন  ত্বকের রঙ উজ্জ্বল ফর্সা করতে অ্যালোভেরা ফেসপ্যাক

৬) মুখে বরফ দিন
ঘুমাতে যাবার আগে ত্বকে বরফ দিতে পারেন। এক ঘণ্টায় তিনবার, প্রতিবার ১০ মিনিট করে পেপার টাওয়েলে পেঁচিয়ে বরফ দিতে হবে। এতে ত্বকের(Skin) জ্বালাপোড়া এবং লালচেভাব কমবে।

৭) সিল্কের বালিশের কভার ব্যবহার করুন
সপ্তাহে অন্তত একবার বালিশের কভার পাল্টানোর অভ্যাস গড়ে তুলুন। মুখে ব্রণ(Acne) থাকলে পরিষ্কার বালিশে ঘুমানো উচিৎ। ব্যবহার করতে পারেন সিল্ক বা শতভাগ সুতি কভার। এতে ত্বকে ঘর্ষণের পরিমাণ কমে এবং ত্বক আরাম পায়।

পরিবর্তীতে যেন ব্রণ ফিরে না আসে এর জন্য ত্বক পরিষ্কার রাখার অভ্যাস গড়ে তুলুন। কখনোই মেকআপ না তুলে ঘুমাতে যাবেন না। ঘুমানোর আগে অবশ্যই মুখ ধুয়ে নিন। স্ট্রেস কম রাখতে যোগব্যায়াম বা মেডিটেশন করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.