চুল পাতলা হয়ে গিয়ে টাক পড়ে যাচ্ছে? অল্প খরচে রুখে দিন এই সমস্যা

চুল (hair)পাতলা হয়ে গিয়ে টাক পড়ে যাচ্ছে? অল্প খরচে রুখে দিন এই সমস্যা
চেহারায় সৌন্দর্য যোগ করে চুল । শুধু সৌন্দর্যই নয়, চুল(hair) মানুষের ব্যক্তিত্বেও শান দেয়। একমাথা ঘন চুলের কদর তাই নারী-পুরুষ উভয়ের ক্ষেত্রেই আছে। কিন্তু আধুনিক জীবনযাত্রা, কর্মব্যস্ততার যুগে আলাদা করে চুলের যত্ন(hair care) নেওয়ার সময় অনেকেরই হয় না। ফলে একটা বয়সে পৌঁছনোর পরেই চুল পাতলা হতে শুরু করে। ইন্দ্রলুপ্ত বা টাকের সমস্যা সামনে এসে দাঁড়ায়।

চুল পাকলে যাও বা তার কিছু ঘরো(hair)য়া সমাধান আছে, ঘরোয়া উপায়ে রাসায়নিক রং ব্যবহার না করেও তাকে আয়ত্তে আনা যায়, কিন্তু চুল (hair)ঝরে যাওয়া ঠেকাতে তেমন চটজলদি কোনও সমাধান হাতের কাছে থাকে না। তখন চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া ছাড়া খুব একটা উপায়ও থাকে না। কিন্তু যদি ঘরোয়া এই উপায় মেনে চলেন তবে চুল পাতলা হওয়ার হাত থেকে বাঁচতে পারেন নিমেষে। অল্প খরচে সহজ এই সমাধানের উপায় দেখে নিন।

একটি পাত্রে ডিম ফাটিয়ে নিন। তাতে এক টেব‌্ল চামচ ক্যাস্টর অয়েল মিশিয়ে নিন। ক্যাস্টর অয়েলের পরিবর্তে নারকেল তেলও ব্যবহার করতে পারেন। এই মিশ্রণ ভাল করে ফেটিয়ে একটা মাস্ক তৈরি করে নিন। সপ্তাহে দিন তিনেক এই মাস্ক ভাল করে চুলের গোড়া থেকে ডগা পর্যন্ত লাগিয়ে নিন। মাথার তালুতে মাসাজও করুন। এই অবস্থায় আধ ঘণ্টা রেখে দিন। এর পর ঠান্ডা জলে ধুয়ে শ্যাম্পু করে নিন। শ্যাম্পুর পর চুলে (hair)অপেক্ষাকৃত মৃদু কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন।

আরো পড়ুন  লম্বা ও ঘন চুল পাবার ৪টি ঘরোয়া পদ্ধতি জেনে নিন

ডিমে থাকা প্রোটিন, ভিটামিন বি ১২, আয়রন, জিঙ্ক এগুলি চুলের বৃদ্ধি ও ঘনত্বে বিশেষ কাজে আসে। কথায় বলে ‘তেলে চুল (hair)তাজা’। আসলে ক্যাস্টর অয়েল বা নারকেল তেলে প্রচুর ভিটামিন ও মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টস থাকে যা চুলের গোড়ায় পুষ্টি জোগাতে অপরিহার্য। তাই এই মিশ্রণের প্রভাবে চপল পড়া যেমন রোধ হবে তেমনই চুলে আসবে নয়া জেল্লা।

অলিভ অয়েল, মধু ও দারুচিনিঃ ৫ টেবিল চামচ এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল, ১ চা চামচ দারুচিনি গুঁড়ো এবং ৩ টেবিল চামচ মধু ব্যবহার করে আপনি একটি হেয়ার মাস্ক তৈরি করতে পারেন। অলিভ অয়েল ও মধু একসাথে গরম করে নিন। এতে দারুচিনি গুঁড়ো দিয়ে মিহি পেস্ট তৈরি করে নিন। এই মাস্ক মাথার তালুতে এবং চুলের (hair)গোড়ায় মাসাজ করে নিন। বাকি থাকলে তা চুলে(hair) মাখিয়ে নিন। শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে চুল ঢেকে রাখুন ৪০ মিনিট। এরপর হালকা শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুই দিন এই মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন। চুল পড়া (hair fall)কমানোর পাশাপাশি পাতলা চুল ঘন করতে পারে এই মাস্ক।

স্বামী স্ত্রী’র সম্পর্ক চিরকাল টিকিয়ে রাখতে যা করবেন!
আদর্শ সম্পর্ক (relation) বলতে অনেকে বোঝেন ঝগড়াঝাটি ছাড়াই সুখে শান্তিতে দিনের পর দিন কাটিয়ে দেওয়াকে। যারা এরকম ভাবেন তাদের বলে রাখি এরকম সম্পর্ক কিন্তু বেশীদিন টেকে না। অনেক যুগল আছেন যারা ঝগড়া এড়িয়ে চলতে চান। ঝগড়া এড়িয়ে চললেই হবে বিপদ। সম্পর্ক (relation)টিকে থাকলেও একে অপরের সঙ্গে কেউ কোনোদিন সুখী হতে পারবে না? তাই একটা সম্পর্ক (relation)টিকে থাকার জন্যে নিয়ম ঝগড়া হওয়াটা খুব দরকার। আসুন দেখে নেওয়া যাক যে পাঁচ কারণে সম্পর্কের (relation)মধ্যে তর্ক-বিতর্ক অত্যন্ত জরুরি। তাই অন্তত একবার হলেও এ কারণেই ঝগড়া করুন।

আরো পড়ুন  চুল লম্বা করুন সহজ ৭টি উপায়ে

কোনো নির্দিষ্ট বিষয়ে নিজেদের দৃষ্টিভঙ্গী স্পষ্টভাবে প্রকাশের জন্য আমরা সাধারণত তর্ক করি। এটার কারণে শুধুমাত্র নিজেদের মধ্যে চিন্তাভাবনা টিকিয়ে রাখি না, নিজেদের ভিন্ন মনোভাবও অপরের কাছে স্পষ্ট করি। এতে নিজেদের প্রতি ক্ষোভ থাকে না এবং একে অপরকে বুঝতে সুবিধা হয়। অধিকাংশ প্রেমিক যুগল একে অপরের কাছে ক্ষমা চায় এবং আরো বেশি ঘনিষ্ঠ হয়। যদি ঝগড়া যুক্তিসঙ্গত হয় তবে এতে ঘনিষ্ঠতা আরো বাড়ে।

আরো পড়ুন, প্রেমে পড়েও অনেকে জানান দিতে চান না শুধুমাত্র হারিয়ে ফেলার ভয়ে। হয়তো ভালো বন্ধু, কিন্তু প্রেমে পড়ার কথা জানলে যদি বন্ধুত্বটা না রাখে- এমন ভয় থেকেই আর মনের কথাটি বলা হয় না। এদিকে অপরপক্ষও হয়তো মনে মনে চায় কথাটি শুনতে।

আরো পড়ুন  চুল পড়া কমানোর ৯টি ঘরোয়া উপায়

কিন্তু দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ঝেড়ে কেউ আর সামনে এগোতে পারেনা বলে কত প্রেমই যে সুপ্ত রয়ে যায়! তবে কেউ আপনার প্রেমে পড়েছে কি না তা বোঝার রয়েছে কিছু উপায়। এই লক্ষণগুলো কারো সঙ্গে মিলে গেলেই বুঝে নিতে হবে সে আপনার প্রেমে পড়েছে!

যাকে আপনার প্রতি দুর্বল (weak) বলে মনে হয়, তিনি কি আপনার বিশেষ শখ বা পছন্দের হদিস জেনে সেই অনুযায়ী কিছু কিনে দিয়েছেন? বা হয়তো এমন কিছু জিনিস কিনেছেন, যা আপনার প্রয়োজনীয় হলেও আপনি আদৌ তা আগে বুঝতেই পারেননি, উপহার দেওয়ার সময় তিনিই বুঝিয়ে দিলেন তা। এমন হলে সেই দুর্বলতা (weak) কিন্তু সাধারণ নয়!

অফিসে হোক বা অন্য কোথাও, আপনার ভুল হয়েছে জেনেও সবার সামনে কি আপনার হয়ে লড়ে যান তিনি? নানা যুক্তিতে আপনার ভুল হালকা করার চেষ্টা করেন? পরে আপনাকে একা পেয়ে হয়তো বুঝিয়ে বলেন সেদিনের ভুল। এমন হলে সেই মানুষ কিন্তু আপনারই অপেক্ষায় রয়েছেন।

আপনার পোষ্যটিকে তিনিও খুব আদর করছেন, একই রকম ভালোবাসছেন- এমন হলে কিন্তু বুঝতে হবে যাকে নিজের প্রতি দুর্বল (weak) বলে ভাবেন, তিনি সত্যিই দুর্বল আপনার প্রতি। পোষ্যকে ভালোবাসা সাধারণত নিজের দুর্বলতা (weak) প্রকাশের একটা মাধ্যম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.